Walton Primo ZX4 Review: প্রিমিয়াম ডিজাইন, শক্তিসালি হার্ডওয়্যার, বেস্ট ক্যামেরা স্মার্টফোন!

Written by

প্রিমিয়াম ডিজাইন, এস্থেটিক লুক এবং হেভি স্পেসিফিকেশনের জন্য বরাবরই জনপ্রিয় ওয়ালটনের প্রিমো জেডএক্স সিরিজ। শুরু থেকে ওয়ালটন জেডএক্স সিরিজের মাধ্যমে তাদের প্রিমিয়াম লাইনআপের ফোন বাজারে নিয়ে আসছে। সম্প্রতি পূর্ববর্তী জেডএক্স৩ এর সাক্সেসর হিসেবে ওয়ালটন বাজারে এনেছে তাদের নতুন স্মার্টফোন প্রিমো জেডএক্স৪। ‘বিপ্লবের শুরু এখানেই’ ট্যাগ্লাইন দিয়ে ওয়ালটন তাদের নতুন এই জেডএক্স৪ স্মার্টফোনটির দাম রেখেছে ২৬৯৯৯ টাকা। প্রিমো জেডএক্স৪ এর অন্যতম আকর্ষণ রিয়ারের পেন্টা ক্যামেরা সেটাপ, হেলিও জি৯৫ গেমিং চিপসেট, ৩২ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা, ৮ জিবি র‍্যাম, ১২৮ জিবি রম সহ আরো অনেক কিছু।

একনজরে প্রিমো জেডএক্স ৪

  • হেলিও জি৯৫ চিপসেট
  • এন্ড্রয়েড ১১
  • ৮ জিবি র‍্যাম, ১২৮ জিবি রম
  • ৬.৬৭ ইঞ্চি ফুল এইচডি-প্লাস এলটিপিএস ডিসপ্লে প্যানেল
  • ৪০০০ এমএএইচ ব্যাটারি
  • সাইড ফিঙ্গার প্রিন্ট সেন্সর
  • ৬৪ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর সহ পেন্টা ক্যামেরা সেটাপ
  • ৩২ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা

বডি এবং ডিসপ্লে

স্মার্টফোনটি হাতে নিয়ে কোন অংশেই আপনার বাজারের অন্য যেকোনো ফ্লাগসিপ গ্রেড স্মার্টফোনের চেয়ে কম মনে হবেনা! আপনি জেডএক্স৪ হাতে নিয়েই বুঝবেন আপনি কোনো ফ্লাগশিপ স্মার্টফোন হাতে নিয়ে আছেন। আর স্মার্টফোনটির প্রিমিয়ামনেসকে শতগুণে বাড়িয়ে দিয়েছে এর অনবদ্য বিল্ড কোয়ালিটি! প্রিমো জেডএক্স৪ স্মার্টফোনটি সম্পূর্ণ অ্যালুমিনিয়াম ফ্রেম এবং গ্লাস বডির সংমিশ্রণে তৈরি।

পাশাপাশি স্মার্টফোনটির রিয়ার প্যানেল ফিঙ্গারপ্রিন্ট ম্যাগনেট না হবার ফলে, আঙুলের ছাপ পরে পরে দেখতে ‘অড’ দেখার ভয় নেই। ৮.৬ মিলিমিটার পুরুত্তের এই স্মার্টফোনটি যথেষ্ট গ্রিপি এবং সহজেই আপনার হাত থেকে পরে যাবেনা। প্রিমো জেডএক্স৪ পেছন থেকে দুপাশে দারুন কার্ভড ফিনিস বলে, একে হাতে ধরে রাখার সময় আরো সুন্দর অনুভূতি পাওয়া যায়।

৬৪ মেগাপিক্সেল মেইন প্রাইমারি ক্যামেরা সেন্সর নিয়ে প্রিমো জেডএক্স৪ এর রিয়ার প্যানেলের পেন্টা ক্যামেরা বাম্প স্মার্টফোনটির অন্যতম একটি আকর্ষণ। রিয়ারে ডিভাইসটির পেনটা ক্যামেরা বাম্প স্মার্টফোনটির প্রিমিয়ামনেসকে আরো বেশি পরিপূর্ণতা দিয়েছে। প্রিমো জেডএক্স৪ এর রিয়ারে কোন ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর দেখতে পারবেন না। বরং ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরটি দেয়া রয়েছে স্মার্টফোনটির সাইড প্যানেলে। আর সাইড প্যানেল ফিঙ্গারপ্রিন্ট যে কতটা ইউজার ফ্রেন্ডলি তা বলাই বাহুল্য! অ্যালুমিনিয়াম এবং গ্লাস বিল্ট এই জেডএক্স৪ ডিভাইসটি যে খুব ভারি তাও কিন্তু নয়! প্রিমো জেডএক্স৪ স্মার্টফোনটি যথেষ্ট লাইট এবং ব্যাটারি সহ এর ওজন মাত্র ২০০ গ্রামের আশেপাশে। স্মার্টফোনটিতে পাবেন হাইব্রিড সিম কার্ড স্লট। যার ফলে দুটি সিম, বা একটি সিম এবং একটি মেমরি কার্ড ব্যবহার করতে পারবেন।

ফ্রন্টে প্যানেলে প্রিমো জেডএক্স৪ ডিভাইসের অনবদ্য ব্যাপার হচ্ছে, মিনিমাম বেজেল এবং ডিসপ্লে কাট-আউট ক্যামেরা। ফোনটির বিশাল ডিসপ্লের ফাঁকে উপরে মাঝামাঝি হালকা ফাকা অংশে দেখতে পারবেন, ৩২ মেগাপিক্সেল সেলফি শুটার।

ফোনটিতে আপনি পাচ্ছেন ৬.৬৭ ইঞ্চি ফুল এইচডি প্লাস ডিসপ্লে প্যানেল। যার রেজুলেসন ২৪০০*১০৮০ পিক্সেল। এতে ব্যবহার করা হয়েছে লো-টেম্পারেচার পলি-সিলিকন তথা এলটিপিএস ডিসপ্লে প্যানেল। সাধারন আইপিএস এলসিডি ডিসপ্লে এর চাইতে এই এলটিপিএস ডিসপ্লের একক ক্রিস্টাল ইলেকট্রন গুলোর মুভমেন্ট অনেক বেশি ফাস্ট! যার দরুন এলটিপিএস ডিসপ্লেতে রেজুলেসন এবং ভিউইং এঙ্গেল দুটোই পাওয়া যায় বেশি। আর ডিসপ্লে সিলিকন ক্রিস্টালগুলোর মুভমেন্ট তুলনামুলক ফাস্ট হবার কারনে এসব ডিসপ্লেতে রিফ্রেশ রেট’ও পাওয়া যায় অনেক বেশি। জেডএক্স৪ স্মার্টফোনে ব্যবহার করা এই ডিসপ্লেটি ২০ঃ৯ রেশিও সমৃদ্ধ ডিসপ্লে।

জেডএক্স৪ স্মার্টফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে সাইড মাউন্টেড ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর।

ইউআই

স্মার্টফোনটিতে দেখা পাবেন এন্ড্রয়েড ১১ এর সাথে ইন্টিগ্রেটেড দারুন একটি ইউজার ইন্টারফেস এআই-ইউআই ২.০। আর দারুন এই ইউজার ইন্টারফেসে অনেক বেশি কাস্টমাইজেশন অপশন। আপনার গোপন এবং পার্সোনাল ফাইল আলাদা করে রাখার জন্য আপনি স্মার্টফোনটিতে পাবেন বিশেষ প্রাইভেট স্পেস এবং অ্যাপ লক সুবিধা। স্লিপ মোড থেকেও আপনি বিভিন্ন জেসচার ব্যবহার করে স্মার্টফোনটির বিভিন্ন ফাংশন চালু বা বন্ধ করতে পারবেন।

হার্ডওয়্যার

জেডএক্স৪ স্মার্টফোনে ব্যবহার করা হয়েছে মিডিয়াটেকের হেলিও জি৯৫ গেমিং প্রসেসর। মিডিয়াটেকের প্রসেসরও যে এখন কোন অংশে কমে আছে, তা বলা খুবই ভুল। পাওয়ার এফিসিয়েন্সি এবং ওয়ার্ক পারমরমেন্সের দিক দিয়ে স্ন্যাপড্রাগনের সাথে বর্তমানের মিডিয়াটেকের প্রসেসরগুলোও সমানতালে প্রতিযোগী। জেডএক্স৪ স্মার্টফোনে ব্যবহৃত হেলিও জি৯৫ প্রসেসরকে তুলনা করা যায় কোয়ালকমের স্ন্যাপড্রাগন ৭৩০জি গেমিং প্রসেসরের সাথে। জেডএক্স৪ স্মার্টফোনে ব্যবহৃত এই হেলিও জি৯৫ প্রসেসরটির ক্লকস্পিড ২.০৫ গিগাহার্জ এবং এটি একটি অক্টাকোর সিপিইউ। গ্রাফিক্স ইউনিট হিসেবে এর সাথে থাকছে মালি জি৭৬ এমসি৪ জিপিউ।

জেডএক্স৪ স্মার্টফোনে কল অফ ডীউটি, পাবজির মতন রিয়েল টাইম মাল্টি প্লেয়ার শুটিং গেমস অনায়াসে ল্যাগ ছাড়াই হাই গ্রাফিক্সে খেলতে পারবেন। গেমিং নিয়ে যেমন প্রবলেম হবেনা, তেমনি প্রবলেম হবেনা মাল্টিটাস্কিং এর ক্ষেত্রেও! স্ক্রিন স্প্লিট করে একসাথে দুটি অ্যাপসও চালাতে পারবেন অনায়াসে। ফোনটিতে পাবেন ৮ জিবি র‍্যাম। এই ৮ জিবি ডিডিআর৪-এক্স র‍্যামের পাশাপাশি স্মার্টফোনটিতে ইন্টারনাল স্টোরেজ পেয়ে যাবেন ১২৮ জিবি। সুতরাং স্টোরেজ নিয়ে কোন মাথাব্যাথাই থাকছে না জেডএক্স৪ স্মার্টফোনটি নিয়ে। তবুও যদি আপনার আরো বেশি স্টোরেজ লাগে তবে ২৫৬ জিবি পর্যন্ত অতিরিক্ত স্টোরেজ মাইক্রোএসডি কার্ড ব্যবহার করেও এক্সপান্ড করতে পারবেন। সুতরাং হার্ডওয়্যার নিয়ে আপনার কোন চিন্তাই করতে হচ্ছে না!

হাইপার ইঞ্জিনঃ গেমিং মোডে স্মার্টফোনটিকে আরো বেশি কার্যকর, ফাস্ট এবং ব্যাটারি এফিসিয়েন্ট করতে জেডএক্স৪ ডিভাইসটিতে পেয়ে যাবেন, মিডিয়াটেকের বিশেষ হাইপার ইঞ্জিন ২.০ টেকনোলজি।

বেঞ্চমার্ক স্কোর

স্মার্টফোনটির হার্ডওয়্যার কতটা শক্তিশালী সেটা প্রমান করে স্মার্টফোনটি থেকে পাওয়া বেঞ্চমার্ক স্কোর। জনপ্রিয় এনটুটু বেঞ্চমার্ক স্কোর অ্যাপে প্রিমো জেডএক্স৪ স্কোর করেছে ২৯৫০৩৮। গিকবেঞ্চ অ্যাপে সিঙ্গেল কোরে জেডএক্স৪ স্কোর করেছে ৪৯৫ এবং মাল্টি কোরে স্কোর করেছে ১৫৩৭।

ক্যামেরা

প্রিমো জেডএক্স৪ এই সবচাইতে বড় আকর্ষণএর কথা যদি বলতে হয়, তবে সেটি হচ্ছে ডিভাইসটির ক্যামেরা সেকশন। স্মার্টফোনটির রিয়ার প্যানেলে পাবেন শক্তিসালি পেন্টা ক্যামেরা সেটাপ। আর এই দামে বাজারে এরকম শক্তিশালী সেটাপ অন্যকোন স্মার্টফোনে পাওয়া সত্যি খুবই দুষ্কর! জেডএক্স৪ এর রিয়ার সেটাপে যা যা পাচ্ছেন, একনজরে তা হলঃ

  • ৬৪ মেগাপিক্সেল সনি IMX682 মেইন সেন্সর
  • ৮ মেগাপিক্সেল ওয়াইড এঙ্গেল সেন্সর (up to 112°)
  • ৫ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো সেন্সর
  • ২ মেগাপিক্সেল ডেপথ সেন্সর
  • ২ মেগাপিক্সেল মনো পোর্ট্রেইট সেন্সর

মেইন ৬৪ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা সেন্সরটির সাইজ 1/1.73″। অর্থাৎ ফোনটির সাথে পাচ্ছেন বিশাল সাইজের একটি প্রাইমারি ক্যামেরা সেন্সর, যার মাধ্যমে এই ফোনটি দিয়ে দারুন সার্প ও কালার একুরেট ছবি তোলা সম্ভব হবে। ফোনটির মেইন ক্যামেরা সেন্সরের এপারচার সাইজ F/1.89। যত কম এপারচার সাইজ তত বেশি সাটার ওপেনিং এবং তত বেশি কালার একুরেট ছবি। তাছাড়াও মেইন ক্যামেরাটিতে পাওয়া যাবে ৬পি লেন্স। জেডএক্স৪ এর রিয়ার ক্যামেরাতে পাবেন বেশকয়েকটি শুটিং মোড। আর এই শুটিং মোডগুলি হচ্ছেঃ

  • Portrait
  • Slow Motion (Highest 1080p)
  • Night
  • Time-Lapse
  • Macro Lens
  • Sticker Mode
  • Monochrome
  • Panorama
  • Professional
  • Colour Tune

রিয়ার ক্যামেরা দিয়ে আপনি ৪কে রেজুলেসনে ভিডিও রেকর্ডিং করতে পারবেন।

স্মার্টফোনটির ফ্রন্ট প্যানেলে ডিসপ্লে কাটআউটের মধ্যে রয়েছে আরেকটি অনবদ্য সেলফি সুটার। স্মার্টফোনটির ফ্রন্টে পেয়ে যাবেন ৩২ মেগাপিক্সেলের একটি সেলফি শুটার। আর এই সেন্সরটির সাইজ 1/2.8″। আর ফ্রন্ট সেন্সরটির এপার্চার F/2.2। ডিভাইসটির ফ্রন্ট ক্যামেরা দিয়ে 1920×1080 রেজুলেসনে ফুল-এইচডি ভিডিও রেকর্ড করতে পারবেন।সুতরাং, ক্যামেরা সেকশনের দিয়ে বাজারে জেডএক্স৪ এই দামে যেন একদম অপ্রতিদ্বন্দ্বী!

ক্যামেরা স্যাম্পল

পরিশেষে

সম্পূর্ণ ডিভাইসকে পাওয়ার দিবে একটি ৪০০০ এমএএইচ ক্ষমতা সম্পন্ন লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি। পাশাপাশি স্মার্টফোনটি ১৮ ওয়াট ফাস্ট চার্জিংও সাপোর্টেড।

স্মার্টফোনটিতে দারুন নোটিফিকেশন ফিডব্যাকের জন্য পাবেন লিনিয়ার ভ্রাইবেশন মোটর। একাধিক অ্যাপলিকেশন একসাথে চালানোর জন্য পাবেন স্প্লিট স্ক্রিন সুবিধা। আপনি যদি ২৬ হাজারের বাজেটে প্রিমিয়াম ডিজাইন, গেমিং এবং অনবদ্য ক্যামেরার জন্য অসাধারণ একটি ফোন কিনতে চান। তবে জেডএক্স৪ হতে পারে আপনার জন্য দারুন একটি বাজেট। প্রধানত এই দামে প্রিমো জেডএক্স৪ এর মতো ক্যামেরা অন্যকোনো ফোনে খুঁজে পাওয়া খুবই কষ্টসাধ্য হবে আপনার জন্য। প্রিমো জেডএক্স৪ এর সাথে ওয়ালটনের অন্যসকল ফোনের মতই পাবেন ১ বছরের অফিসিয়াল ওয়ারেন্টি এবং ১০১ দিনের প্রায়োরিটি সাপোর্ট।

Article Categories:
অন্যান্য

Leave a Reply

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *